মাস্কহীন ক্রেতাকে কফি দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে পেলেন ৬৮ লাখ টাকা

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারির মধ্যেই হোটেল-রেস্তোরাসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খুললেও জারি রয়েছে জরুরী স্বাস্থ্য সতর্কতা। যার মধ্যে রয়েছে মুখে মাস্ক পরিধানের বাধ্য-বাধকতাও। কিন্তু সম্প্রতি এই নিয়ম অমান্য করে কোনো মাস্ক পরিধান ছাড়াই আসা এক ক্রেতার কাছে কফি বিক্রি করতে অস্বীকৃতি জানান চেইন কফি শপ স্টারবাকসের এক কর্মী। আর এই ঘটনায় দায়িত্বশীলতার পুরস্কার হিসেবে নগদ ৮০ হাজার মার্কিন ডলার (৬৮ লাখ সাড়ে ১৪ হাজার টাকা) পেয়েছে সে।

সম্প্রতি স্টারবাকসের স্যান্ডিয়াগো ব্র্যাঞ্চের কর্মী লেনিন গুতেরেজের কাছ থেকে কফির অর্ডার করেন অ্যাম্বার লিন গিলিজ নামক এক নারী। কিন্তু মাস্ক পড়া না থাকায় তাকে কফি পরিবেশনে অস্বীকৃতি জানান লেনিন। এ ঘটনায় রাগান্বিত হয়ে তার সঙ্গে ঝগড়া জুঁড়ে দেন সেই নারী। এক পর্যায়ে কোনো অনুমতি ছাড়া তার ছবিও তোলেন তিনি।

সেই ছবি সে ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেন যে, “কেবল মাত্র মাস্ক না পড়ায় আমাকে কফি পরিবেশনে অস্বীকৃতি জানানো হয়েছে। পরবর্তীতে আমি সেখানে গেলে সঙ্গে মেডিক্যাল কাগজপত্র ও পুলিশ নিয়ে যাবো।”

এ পোস্ট ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর বিতর্কের শুরু হয়। অনেকেই কফিশপ কর্মী লেনিনের পক্ষ নেন, কারণ চলমান মহামারির মধ্যে যা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে, সে সেটাই পালণ করেছে।

এ ঘটনার পর লেনিনের সমর্থনে লোকজন একটি ফান্ড তৈরি করে। প্রাথমিক অবস্থায় সেই ফান্ডের জন্য এক হাজার ডলার চাওয়া হলেও খুব অল্প সময়ের মধ্যেই সেখানে ৮০ হাজার ডলার জমা হয়, যা তুলে দেয়া হয় তার হাতে।

এ সম্পর্কে লেনিন বলেন, “আমাকে নিয়ে বিতর্কিত ফেসবুক পোস্ট ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই জিজ্ঞেস করেছিলো যে, ঠিক কি হয়েছিলো সেখানে? আমি জানানোর পর অনেকেই আমাকে সমর্থণ করে ও এগিয়ে আসে।”

শুভাকাঙ্খীদের পাঠানো অর্থ প্রসঙ্গে তিনি জানান, এই অর্থ দিয়ে তিনি এখন অসহায় লোকদের পাশে দাঁড়াতে চান, এছাড়া নিজের নৃত্য শিল্পী হওয়ার শখও পূরণ করতে চান তিনি।

সূত্র: সিএনএন

Updated: 30/06/2020 — 10:41 PM