করোনায় আক্রান্ত রাখাল, ছাগল ও ভেড়াকে পাঠানো হল কোয়ারেন্টাই

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে তাণ্ডব চালাচ্ছে। ছোট বড় সবাই এতে আক্রান্ত হচ্ছে। তবে অবলা পশুরাও আক্রান্ত হচ্ছে এই ভাইরাসে। আর সে কারণেই কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে সেসব পশুদের। শুনে অবাক লাগলেও এই ঘটনাই ঘটেছে ভারতের কর্ণাটকের টুমাকুরু জেলের গোড়েকেড়ে গ্রামে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টুমাকুরু জেলের গোড়েকেড়ে গ্রামের কয়েকটি ভেড়া ও ছাগলের শ্বাসকষ্ট হচ্ছে বলে সন্দেহ হয় স্থানীয় বাসিন্দাদের। তারা স্থানীয় পশুপালন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করে বিষয়টির কথা জানান। চারিদিকে যেভাবে করোনার সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে ওই পশুগুলোরও করোনা হয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন তারা।

পরবর্তীতে জানা যায়, ওই ভেড়া ও ছাগলগুলোকে যে দেখাশোনা করে সেই রাখালেরও শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। এরপর ওই পশুগুলো ও তাদের রাখালের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য তা ভোপালের একটি সরকারি ল্যাবে পাঠানো হয়। ফলাফল এলে জানা যায়, রাখাল যুবকের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গেলেও পশুগুলো করোনায় আক্রান্ত হয়নি। তাই রাখালকে হাসপাতালে ভর্তি করার পাশাপাশি ৫০টি ছাগল ও ভেড়াকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়।

রাজ্যে পশুপালন বিভাগের এক আধিকারিক সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, ওই রাখাল যেসব ভেড়া-ছাগল চরাতেন তাদের মধ্যে কয়েকটির শ্বাসকষ্ট দেখা দিয়েছে। এর ফলে করোনা আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। মানুষের ধারনা ওইসব ভেড়া, ছাগলেরও করোনা হয়ে গিয়েছে।

পরিস্থিতি খারাপ দেখে গ্রামবাসীরা রাজ্যের মন্ত্রী জে সি মধুস্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তার নির্দেশ অনুযায়ী ওই গ্রামে আসেন রাজ্যে পশুপালন বিভাগের চিকিত্সকরা। পশু চিকিত্সকদের সন্দেহ, ওইসব ভেড়া-ছাগল পিপিআর নামে একটি রোগে ভুগছে। সাধারণভাবে ওই রোগকে বলা হয় গোট প্লেগ।

Updated: 01/07/2020 — 12:11 PM