ইসরাইলের পক্ষ নেওয়ায় ট্র্যাম্পকে ক’ড়া হুঁ’শিয়ারি দিলো খামেনি

সিরিয়া ও ইরাক থেকে আমেরিকাকে ব’হিষ্কার করা হবে বলে হু’শিয়ার দিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতু্ল্লাহ আলি খামেনি।

গতকাল রোববার দেশটির বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার পার্টিতে ভি’ডিও

কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে দেয়া ভাষণে তিনি এ হু’শিয়ার দেন। খবর পার্সটুডে।

খামেনি বলেন, আফগানিস্তান, ইরাক ও সিরিয়ায় আমেরিকার সামরিক আগ্রাসন বিশ্বব্যাপী মার্কিন সরকারকে ঘৃ’ণিত করে তুলেছে। ‌‌‌

অবশ্য ইরাক বা সিরিয়ায় মার্কিন সেনারা থাকতে পারবে না বরং তাদেরকে চলে যেতে হবে এবং নিঃস’ন্দেহে তাদেরকে ব’হিষ্কার করা হবে।’

তিনি বলেন, বিশ্বের বহু দেশে এমনকি আমেরিকার ভেতরেও মার্কিন পতাকায় অ’গ্নিসংযোগ করা হয়।

আর এ ঘটনা বিশ্ববাসীর অন্তরে আমেরিকার প্রতি বিদ্বেষের মাত্রা তুলে ধরে। শুধু সাধারণ মানুষ নয়

আমেরিকার মিত্র দেশগুলোর রাষ্ট্রপ্রধানরাও নিজেদের মধ্যে আলাপচারিতার সময় মার্কিন নেতৃবৃন্দের প্রতি বি’দ্বেষ উ’গড়ে দেন।

জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ ইসরাইলকে সম্ভাব্য বড় ধরনের সংঘা’তের হু’মকি দিয়েছেন। ইসরাইল পশ্চিম তীরের দখলকৃত অংশকে

আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের ভূখণ্ড হিসেবে ঘোষণা করলে ইসরাইলের বিরু’দ্ধে সংঘা’ত শুরু হতে পারে বলে হু’শিয়ারি দিয়েছে তিনি।

জার্মান সংবাদ মাধ্যম ডের স্পিগেলে প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি ই’সরাইলকে তাদের পরিকল্পনার জন্য সতর্ক করেছে।

এছাড়াও তিনি স্বাধীন ফিলিস্তিন গড়ার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। তিনি বলেন, স্বাধীন-সার্বভৌম ফিলিস্তিন প্রতিষ্ঠাই সর্বোত্তম পথ।

এর আগে জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আইমান আল সাফাদি বলেছেন, ইসরাইল পশ্চিম তীরকে নিজের ভূখণ্ড হিসেবে ঘোষণা করলে তা হবে বি’পর্যয়কর।

এ ধরণের পদক্ষেপের ফলে সরাসরি আন্তর্জাতিক আই’নও ল’ঙ্ঘিত হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তবে ফিলিস্তিনের কর্তৃপক্ষসহ সব ফিলিস্তিনি দল ও সংগঠন এ ধরনের পরিকল্পনার পরিণতির বিষয়ে হুঁ’শিয়ারি দিয়েছে।

এই সময় আমেরিকা ইসরাইলের পক্ষ নেয় বলে জানা যায় ।ট্র্যাম্প ঘোষণা দেয়”প্রয়োজনে জর্ডান সীমান্তে সৈন্য পাঠাবে আমেরিকা।”

এতে ইরানের সবোচ্চ নেতা ক্ষি’প্ত হন।ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের প্রতি বিশ্ব জনমতের বি’দ্বেষের প্রধান কারণ, সে দেশের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বে’পরোয়া ও যু’ক্তিহীন আ’চরণ এবং বা’গাড়ম্বর। ‘দীর্ঘমেয়াদে আমেরিকা বিশ্বব্যাপী গ’ণহ’ত্যা, অ’পরাধযজ্ঞ, অ’ন্যায় আ’চরণ, স’ন্ত্রাসবাদ লালন, স্বৈ’রাচারী ও গণধিকৃত সরকারগুলোর প্রতি সমর্থন করে ।

তাছাড়া ইতিহাস সাক্ষী দখলদার ই’হুদিবাদী ইসরাইলকে পৃষ্ঠপোষকতা প্রদানের কারণে নি’ন্দিত ও ঘৃ’ণিত হয়েছে।’ সাম্প্রতিক সময়ে অর্থনীতি ও ক’রোনাভা’ইরাস সা’মাল দিতে না পারার কারণে আমেরিকার অভ্যন্তরে বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের বিরু’দ্ধে ক্ষো’ভ বেড়েছে বলেও খামেনি উল্লেখ করেন।সূত্র : আল জাজিরা

Updated: 18/05/2020 — 1:08 PM